যশোরে কুরবানির পশু বিক্রির একমাত্র ভরসা “অনলাইন পশুর হাট”-71news24

একাত্তর নিউজ ডেস্ক :

কোরবানির পশুর জন্যে ঝুঁকি নিয়ে আর পশুহাটের ভিড়ের মধ্যে যেতে হবে না যশোরের বিক্রেতা কিংবা ক্রেতাদের। এখন ঘরে বসেই অনলাইনে বিক্রির জন্যে পশু কিংবা পছন্দের বিষয়টি সেরে নিতে পারবেন ক্রেতারা।

 

এ বছর ওয়েবসাইট ও ফেসবুক পেজের মাধ্যমে অনলাইনে ক্রেতা-বিক্রেতারা তাদের পছন্দমতো পশু কেনা-বেচা করতে পারবেন। এজন্য www.jashorehat.com (যশোরহাট ডট কম) নামে একটি ওয়েব সাইট এবং https://www.facebook.com/onlineposhurhatjashore (অনলাইন পশুর হাট, যশোর) নামে একটি ফেসবুক পেজ তৈরি করা হয়েছে।

করোনা ভাইরাসের সংক্রমণের বৈরী পরিস্থিতিতে আগামী ২১ জুলাই ঈদ-উল-আজহা। মানুষের সুরক্ষা ও চলাচলে বিধিনিষেধের কারণে জেলা প্রশাসন গতবারের মতো এবারও অনলাইনে কোরবানির পশুহাটের ব্যবস্থা করেছে।

 

সোমবার দুপুরে জেলা প্রশাসকের সভাকক্ষে অনলাইন পশুহাটের বিষয়ে যশোরের জেলা প্রশাসক মো. তমিজুল ইসলাম খান সাংবাদিকদের ব্রিফিংয়ে বলেছেন, যশোরের ক্ষুদ্র ও মাঝারি ও বৃহৎ পরিসরে প্রায় ১২ হাজার খামারি গত এক বছর ধরে কোরবানিতে বিক্রির উদ্দেশ্যে ৯০ হাজারের বেশি পশু পালন করেছেন।

 

তিনি বলেন, ‘পশুর হাটে উচ্চমাত্রার সংক্রমণ ঝুঁকি থাকায় বিকল্প হিসেবে জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে অনলাইনে পশু ক্রয়-বিক্রয়ের জন্য একটি প্ল্যাটফর্ম গড়ে তোলা হয়েছে। জেলা প্রাণিসম্পদ অধিদফতর, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি অধিদফতর এবং ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টারের উদ্যোক্তাদের সহায়তায় স্বতঃস্ফূর্তভাবে এগিয়ে চলছে প্ল্যাটফর্মটি।’

 

তিনি জানান, ইতোমধ্যে ওয়েবসাইটে খামারিরা এক হাজার ২৬৮টি গরু-ছাগল আপলোড করেছেন। ক্রেতারা তাদের পছন্দমতো পশু এই ডিজিটাল হাট থেকে কিনতে পারবেন। কেননা এখানে সেইসব পশুর ছবি, ওজন এবং দাম দেওয়া আছে। একই সঙ্গে খামরির নাম-ঠিকানা ও সেলফোন নম্বর লিপিবদ্ধ করা হয়েছে। ক্রেতাদের সুবিধায় ইউনিয়নভিত্তিক তথ্য আপলোড করা হয়েছে। এতে ক্রেতারা চাইলে ইউনিয়নভিত্তিক খামারিদের কাছ থেকে পশু কিনতে পারবেন।

 

ঈদের সময় পশুহাটগুলোতে ভিড়, দালালদের দৌরাত্ম্য, নিরাপত্তাহীনতা এবং কোভিড সংক্রান্ত স্বাস্থ্যঝুঁকিসহ বিভিন্ন প্রতিকূলতা জয় করতে এ অনলাইন প্ল্যাটফর্মটি বিশেষ ভূমিকা রাখবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।

 

তথ্য প্রযুক্তির ব্যবহারের মাধ্যমে মানসম্মত সেবা দ্রুত জনগণের দোরগোড়ায় পৌঁছানোর এ উদ্যোগ মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর রূপকল্প-২০২১ অর্জনে তথা ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার একটি শক্তিশালী পদক্ষেপ বলে তিনি মন্তব্য করেন।

 

সাংবাদিকদের ব্রিফিংকালে অন্যদের মধ্যে যশোর পৌরসভার মেয়র হায়দার গণী খান পলাশ, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শহিদুল ইসলাম মিলন, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট কাজী সায়েমুজ্জামান, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) শাম্মী ইসলাম, জেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা বখতিয়ার হোসেন, প্রেস ক্লাব সভাপতি জাহিদ হাসান টুকুনসহ নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটরা উপস্থিত ছিলেন।

Please follow and like us: