তিতাস কাজী ও ট্যালেন্ট অ্যান্ড ক্রিয়েটিভিটি-71news24

http://www.71news24.com/2019/03/18/1128

কামাল হোসেন, একাত্তর নিউজ ২৪:

বিলেতে স্থায়ী ভাবে বসবাস শুরু করার আগে তিতাস কাজী বাংলাদেশে সঙ্গীত চর্চার সাথে ওতপ্রোত ভাবে জড়িত ছিলেন । গাইবার পাশাপাশি গান রচনা ও সুর করে থাকেন তিতাস । গান এর সাথে তার ভালবাসাকে আরও এগিয়ে নিতে ২০১৪ সালে লন্ডনে শুরু করেন “ট্যালেন্ট অ্যান্ড ক্রিয়েটিভিটি” নামে একটি প্রডাকশন  হাউজ। মূল উদ্দেশ্য ছিলো ভালো বাংলা গান তৈরি করা, দেশ থেকে দুরে বাংলা গান কে ভালবেসে যেই প্রবাসী শিল্পীরা কাজ করছেন সেসব শিল্পী, নতুন সম্ভাবনাময় শিল্পীদের মিডিয়াতে উপস্থিত করা এবং পাশাপাশি  বাংলাদেশের নামকরা গুনী শিল্পীদের সাথে নিয়ে ভালো কিছু গান করার চেষ্টা করা ।

সেই লক্ষ্যে প্রথম এ্যালবাম “গানেরই দেশে ফেরা” মুক্তি পায় ২০১৫ সালে। বাংলাদেশ এবং লন্ডন মিলে জনপ্রিয় ও নতুন কিছু মুখের সমন্বয় ছিল অ্যালবামটি। সঙ্গীত আয়োজন করেছিলেন লাবু রহমান, পার্থ মজুমদার, বাপ্পা মজুমদার এবং রাজীব। এ্যালবাম রিলিজ হয়েছিলো জি সিরিজের ব্যানারে ডিসেম্বরের ২৭ তারিখে ২০১৫ সালে।  বাংলাদেশ এবং বিলেতের সুধী জনদের প্রশংসা পায় অ্যালবামটি। তারপর একে একে অনেক কাজ করেছে এই প্রোডাকশন হাউজ। তাদের অফিসিয়াল ইউটিউব চ্যানেলের নাম TK MUSIC.

তিতাস কাজীর বেড়ে ওঠা যশোর শহরের আর এন রোড অম্বিকা বসু লেনের আকা বাকা নিবাসে। ১৫ অক্টোবর ১৯৬৬ সালে কাজী পরিবারে  জন্মগ্রহন করেন। সদ্য প্রয়াত কাজী মাস উদুল হকের একমাত্র ছেলে কাজী তিতাস। ডা: কাজী রবিউল হক তার চাচা।

বাংলাদেশের জনপ্রিয় ও অনেক গুনী শিল্পী  “ ট্যালেন্ট অ্যান্ড ক্রিয়েটিভিটি” প্রতিষ্ঠানের কর্মকাণ্ড কে নানান ভাবে সাহায্য করেছেন, যুক্ত থেকেছেন বিভিন্ন প্রজেক্ট এ। তাঁদের মধ্যে অন্যতম কণ্ঠশিল্পী ফাহমিদা নবী, হাসান আবিদুর রেজা জুয়েল, পলাশ, এস আই টুটুল, বাপ্পা মজুমদার, বিজয় মামুন, এ আই রাজু, নন্দীতা, মোল্লা বাবু এবং প্রিন্স মাহফুজ, ব্যান্ড তারকা রোমেল (ফিডব্যাক), চন্দন (উইনিং), টিপু (অবস্কিউর), মেসবাহ (ডিফারেন্ট টাচ), সুমন (পেন্টাগন) এবং সঙ্গীত আয়োজক ফোয়াদ নাসের বাবু, লাবু রহমান, পার্থ মজুমদার, মীর মাসুম, গীতিকবি সঞ্জয় মুখার্জি সহ অনেক গুণীজন ।সঙ্গে ছিলেন বিলেতের জনপ্রিয় শিল্পী ফযলুল বারি বাবু, সুমন শরিফ, পরশ মনি, লাবনী বড়ুয়া ও পুতুল ।

ট্যালেন্ট অ্যান্ড ক্রিয়েটিভিটি” অত্যন্ত সম্মানিত বোধ করে তাদের দুটি বিশেষ প্রজেক্ট নিয়ে । বাংলা গানের দুই কিম্বদন্তী কে শ্রদ্ধা জানিয়ে আমাদের করা গান  ট্রিবিউট টু লাকী আকন্দ – তোমার যত গান  এবং ট্রিবিউট টু আইয়ুব বাচ্চু – মেনে নেয়া যায়না । স্রোতারাও দারুণ ভাবে গ্রহণ করেছেন এই স্রধাঞ্জলি। পাশাপাশি লাকী আকন্দ যখন অসুস্থ ছিলেন, তখন  বিলেতের মাটিতে সবার সহযোগীতায় “আমাদের লাকী আকন্দ” নামে একটা অনুষ্ঠান করে কিছু অর্থ যোগার করা সম্ভব হয়েছিলো যেটা লাকী আকন্দের পরিবারের হাতে তুলে দেয়া হয়েছিলো।

একাত্তর নিউজ ২৪ডটকমকে তিতাস কাজী বলেন,আমাদের বর্তমান কাজ “রিমেক অফ টেমস নদীর তীরে” । গীতি কবি, সংগঠক এবং শব্দ প্রকৌশলী শামসুল জাকি স্বপন এর লেখায় এবং উদ্যোগে বিলেতের ২৮ জন শিল্পীর কণ্ঠে ২৮ টা মৌলিক গান নিয়ে “টেমস নদীর তীরে “ এ্যালবামটা প্রকাশিত হয়েছিলো ২০১৩ সালে । অ্যালবাম এর সব গুলো গানের নতুন সুর ও সঙ্গীত সংযোজন করে পুনঃ প্রকাশের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে “ট্যালেন্ট অ্যান্ড  ক্রিয়েটিভিটি”র ব্যানারে ।

আরো আসছে প্রিন্স মাফুজের কন্ঠে “আর যদি সে ভালো না বাসে” গানটি। এই গানটার ছোট্র একটা প্রমো ফেসবুকে দেয়া হয়েছে, সেটা থেকে দর্শক স্রোতার খুব ভালো সাড়া পাচ্ছি আমরা ।

 

তিতাস কাজী এবং “ট্যালেন্ট অ্যান্ড ক্রিয়েটিভিটি” দৃঢ় ভাবে বিশ্বাস করে ভালো বাংলা গানের দিন ফিরবেই, শুধু কিছু সময় লাগবে । সময়ের সাথে থেকে কিন্তু বাংলা গানের মুল ধারা সঙ্গী করেই সেই যাত্রা এগিয়ে যাবে।