প্রধানমন্ত্রীর অপেক্ষায় যশোর স্টেডিয়াম -নিরাপত্তার বলয়ে সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন

http://www.71news24.com/2019/03/18/1128

স্টাফ রিপোর্টার, একাত্তর নিউজ ২৪:

যশোরের রাত পাল্টে গেছে। উৎসবের আমেজ শহরের প্রতিটি প্রান্তে। কারণ, বহুদিন পর আসছেন প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা।আওয়ামী লীগের দলীয় প্রতিক নৌকার আদলে বানানো হয়েছে মঞ্চ। করোনা মহামারির পর এবং দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে প্রথম জনসভায় ভাষণ দেবেন তিনি। এজন্য সপ্তাহব্যাপী প্রস্তুতিমূলক কর্মযজ্ঞ শেষ করেছে। এখন বঙ্গবন্ধু কন্যার অপেক্ষায় যশোরবাসী।

২৪ নভেম্বর যশোরের শামস্-উল হুদা স্টেডিয়ামে বিশাল জনসভায় ভাষণ দেবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ঐতিহাসিক এই ভেন্যুসহ পুরো শহর সমাবেশস্থলে পরিণত করতে গত ৭ দিন ধরে ব্যস্ত সময় পার করছেন দলটির নেতারা। তারা বলছেন, এই জনসভায় স্মরণকালের জনসমাগম ঘটাবে। শেখ হাসিনার আগমনকে কেন্দ্র করে উৎসাহ-উদ্দীপনা এখন যশোরজুড়ে।

সাজ সাজ রব যশোর শহরজুড়ে, বিভিন্ন স্থানে বানানো হয়েছে তোরণ।

আওয়ামী লীগ নেতারা জানান, ৫০ বছর আগে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান যশোরের যে স্থানে জনসমুদ্রে ভাষণ দিয়েছিলেন, সেখানেই ভাষণ দেবেন তার কন্যা শেখ হাসিনা। করোনাকালের তিন বছর পর আওয়ামী লীগের নির্বাচনি জনসভায় প্রথমবারের মতো সশরীরে অংশ নিচ্ছেন তিনি। এই সমাবেশ থেকেই দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের রাজনৈতিক বার্তা দেবেন বঙ্গবন্ধুকন্যা। অন্যান্য নির্বাচনের আগে ঢাকা, চট্টগ্রাম ও সিলেট থেকে শুরু হতো প্রচারণা, কিন্তু এবার যশোর থেকে সূচনা হচ্ছে নির্বাচনি প্রচারণা।

 

সার্বিক বিবেচনায় আওয়ামী লীগের প্রভাবশালী নেতা ও বাগেরহাট-১ আসনের সংসদ সদস্য শেখ হেলাল উদ্দিনের নির্দেশনায় যশোরের আওয়ামী লীগ নেতারা জনসভার প্রস্তুতি প্রায় সম্পন্ন করেছেন। তিনি আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় ও স্থানীয় নেতাদের নিয়ে জনসভাস্থল পরিদর্শন করেছেন। এ সময় আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য জাহাঙ্গীর কবির নানক ও আব্দুর রহমান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম, সাংগঠনিক সম্পাদক বিএম মোজাম্মেল হক ও এস এম কামাল হোসেন, বাগেরহাট-২ আসনের সংসদ সদস্য শেখ সারহান নাসের তন্ময়, যশোর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শহিদুল ইসলাম মিলন, সাধারণ সম্পাদক শাহীন চাকলাদার, যশোর সদর-৩ আসনের সংসদ সদস্য কাজী নাবিল আহমেদ, যশোর -১ আসনের সংসদ সদস্য আফিল উদ্দীন এবং যশোর-২ আসনের এমপি মেজর জেনারেল (অব.) নাসির উদ্দিন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

স্থানীয় সংসদ সদস্য কাজী নাবিল আহমেদ বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু যেখানে ভাষণ দিয়েছিলেন, সেই স্থানে প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা ভাষণ দেবেন। এই জনসভাকে জনসমুদ্রে পরিণত করতে আমরা যাবতীয় প্রস্তুতি নিচ্ছি। সাত দিন ধরে এই কর্মযজ্ঞ চলছে। বাগেরহাট-১ আসনের সংসদ সদস্য শেখ হেলাল উদ্দিনসহ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতারা এরই মধ্যে জনসভাস্থল পরিদর্শন করেছেন। জনসভাকে কেন্দ্র করে যশোরসহ গোটা দক্ষিণাঞ্চলের মানুষের মাঝে উৎসাহ-উদ্দীপনা দেখা যাচ্ছে।’

জনসভাস্থাল পরিদর্শন করেন সংসদ সদস্য শেখ হেলাল উদ্দিনসহ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতারা

 

মঙ্গলবার (২৩ নভেম্বর) যশোর শহর ও জনসভাস্থল ঘুরে দেখা গেছে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আগমন উপলক্ষে সর্বত্র উৎসবের আমেজ। নতুন রূপে সাজানো হচ্ছে পুরো শহর, সংস্কার হচ্ছে রাস্তা-ঘাট। বিলবোর্ড, ব্যানার, ফেস্টুন, দেয়াল লেখন, আলোকসজ্জা ও তোরণ নির্মাণসহ ব্যাপক সাজসজ্জার কাজ চলছে পুরোদমে। চলছে মাইকিংসহ প্রচার-প্রচারণাও। প্রধানমন্ত্রীকে স্বাগত জানাতে উন্মুখ হয়ে আছেন জেলার সর্বস্তরের মানুষ।

জনসভাস্থল পরিদর্শন করেন সংসদ সদস্য কাজী নাবিল আহমেদসহ আওয়ামী লীগের স্থানীয় নেতারা

জনসভার প্রস্তুতির বিষয়ে জানতে চাইলে যশোর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা শহিদুল ইসলাম মিলন বলেন, ‘জনসভাকে জনসমুদ্রে পরিণত করতে সব ধরনের প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে। স্টেডিয়ামের মাঠ প্রশস্ত করার পাশাপাশি সমাবেশে আগত লোকজনের সার্বিক সুযোগ-সুবিধা নিশ্চিত করার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি বড় পর্দায় সমাবেশ ও প্রধানমন্ত্রীর ভাষণ দেখার ব্যবস্থা করা হয়েছে। আশা করছি, পাঁচ লাখের বেশি মানুষের সমাগম হবে।’